উপবৃত্তির জন্য তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের বিকাশ একাউন্ট খােলা প্রসঙ্গে বিজ্ঞপ্তি

এসইডিপি এর আওতাধীন সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসূচির সমাপ্ত সেকায়েপ প্রকল্পের ২০১৯ সালের ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণি এবং যােগ্য অন্যান্য শিক্ষার্থীদের মাঝে উপবৃত্তির অর্থ বিতরণের লক্ষ্যে উপবৃত্তির জন্য তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের বিকাশ একাউন্ট খােলা প্রসঙ্গে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত।

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের বাস্তবায়নাধীন সেকেন্ডারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্ামের অধীন সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসূচির আওতায় সমাপ্ত সেকায়েপ প্রকল্পভুক্ত ২০১৯ সালের ৬ট ও ৭ম শ্রেণি এবং যােগ্য অন্যান্য শিক্ষার্থীদের মাঝে উপবৃত্তি বিতরণের লক্ষ্যে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হবে।

 

বিকাশ একাউন্ট খুলতে নিলিখিত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

আগামী ০৭/১১/২০২০ তারিখের মধ্যে বিকাশ একাউন্ট খোলা সম্পন্ন করতে হবে। বিকাশ কর্তৃপক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার সহিত সাক্ষাতপূর্বক প্রতিষ্ঠানভিতিক একাউন্ট খােলার সিডিউল নির্ধারণ করবেন।

Grameenphone এর MyGP এপ ডাউনলোড করে জিতে নিন ফ্রি ইন্টারনেট এবং ফ্রি পয়েন্ট MyGP App Download Now শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে EducationsinBD এর চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel নতুন বিকাশ অ্যাপ থেকে নিজের একাউন্ট খুলুন মিনিটেই, শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। কোথাও যেতে হবে না! আর অ্যাপ থেকে একাউন্ট খুলে প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস!সাথে আছে আরো অ্যাপ অফার: - প্রথম বার ২৫ টাকা রিচার্জে ৫০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস .সর্বমোট ১৫০ টাকা বোনাস পাবেন একজন বিকাশ গ্রাহক। এছাড়া যারা একাউন্ট খুলেছেন তারাও বিকাশ এপ ডাউনলোড করে প্রথম প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস! Bkash App Download Link

উপডেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের সহযােগিতায় বিকাশের প্রতিনিধিগণ সরেজমিনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে শিক্ষার্থীদের নামে বিকাশ একাউন্ট খােলা শুরু করবেন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার ত্ত্বাবধাযনে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের সহযােগিতায় বিকাশের প্রতিনিধির মাধ্যমে উপবৃত্তি তালিকাজুক্ত প্রতযেক যােগ্য শিক্ষার্থীর নামে বিকাশ একাউন্ট খােলা নিশ্চিত করতে হবে। কোনক্মই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা

কর্মকর্তার অনুমতি/সিডিউল ব্যতিত বিকাশ প্রতিনিধিগণ সরাসরি প্রতিষ্ঠানে গিয়ে একাউন্ট খুলতে পারবে না।

শিক্ষার্থীর বিকাশ একাউন্ট খােলার বিষয়ে KYC ফরম পুরণ এবং একাউন্ট পেকে টাকা উত্তোলন প্রভৃতি বিষয় সম্প্কে অবহত করার লক্ষ্যে বিকাশের প্রতিনিধি, সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার সম্বয়ে একদিনের ওরিয়েন্টেশন প্রেরাম করা যেতে পারে। এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদেরকে অবহিত করতে হবে।

উপবৃত্তি প্রাপ্যতার শর্তানুযায়ী কোন অযােগ্য শিক্ষার্থীর বিকাশ একাউন্ট খােলা যালে না। ডাটাবেস/ACTSS এ উল্লিখিত কোন শিক্ষার্থী অনুপসথত/ অযােগ্য থাকলে তার নাম ডাটাবেস/ACTSS থেকে কর্তনপূর্বক প্রতিষ্ঠান প্রধান স্বাক্ষর করবেন। কোন অযােগ্য শিক্ষার্থী বিকাশ একাউন্ট খােলা হলে বা যােগ্য শিক্ষার্থীর/ শিক্ষর পিতা/মাতা/অভিভাবক এল সিম/মােবাইল নমর ব্যতীত অন্য নকরে বিকাশ একাউন্ট খােলা হলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান দায়ী থাকবেন। অসত্য বা ভুল তথ্যের কারণে উপৃত্তির অর্থ বিতরণ করা হলে সে অর্থ

সরকারী কোষাগালে ফোত দিতে প্রতিষান প্রধান বাধ্য থাকবেন এবং এ জন্য তার বিকুদ্ধে বিধি মােতালেক ব্যবস্কা এহ করা হলে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাগণ বিষয়টি সার্বিকভাবে তত্ত্বাবধান করবেন।

উপবৃত্তি প্রাপ্ত সকল শিক্ষার্থীর বিকাশ একাউন্ট সচল রাখতে হবে।

বিকাশ একাউন্ট খােলার জন্য শিক্ষার্থীদের সঙ্গে যা নিয়ে আসতে হবে-

একটি মােবাইল সেট

শিক্ষার্থী/শিক্ষার্থীর পিতা/মাতা/অভিভাবকের নামে রেজিট্ট্রেশনকৃত সিম যে নম্বরে পূর্বে বিকাশ একাউন্ট ঘােলা হয় নাই।

শিক্ষার্থীর ও অভিভাবকের এক কপি পাসপাের্ট সাইজ হণি।

শিক্ষার্থী/পিতা/মাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের স্পষ্ট ফটোকপি।

একাউন্ট খােলার সময় অবশ্যই মনে রাখতে হবে-

  • বিকাশ একাউন্ট খােলার আগে প্রতিষ্ঠানের উপবৃত্তিধারী শিক্ষার্থীদের নামের তালিকা বিকাশ প্রতিনিধি প্রতিষ্ঠান প্রদানে নিকট সরা।করবে।

শিক্ষার্থীর ও শিক্ষার্থীর পিতা/মাতা/অভিভাবকের উপস্থিতিতে বিকাশের প্রতিনিধিকে KYC ফরম সঠিকভাবে পুরথ করতে হবে

একটি সিম/মােবাইল নম্বর ব্যবহাৰ করে কোনক্রমেই একাধিক শিক্ষার্থীর নামে বিকাশ একাউন্ট খােলা যাবে না।

  • শিক্ষার্থী/শিক্ষার্থীর পিতা/মাতার জাতীীয় পরিচয়পত্রের সটোকপি সংযুক্ত করতে হবে।

  • ডাটালেস/ACTSS সীটে উক্ত শিক্ষার্ী /শিক্ষার্থীর পিতা/মাতার নামের সাথে জাতীয় পরিচয়পত্রের নামের মিল থাকতে এলে।

  • মদি আাতীয় পরিচয়াপত এবং টাবেস/ACTSS এ উল্লেখিত উক্ত শিক্ষার্থী/শিক্ষার্থীর পিতা/মাতাৰ নামে কোন অসাম্তস্য থাকে, এলে

ঐ জাতীয় পরিচয়পত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান/কলেজ কর্তৃপক্ষের সত্যায়ন নিতে হবে।

যদি শিক্ষার্থীর কাছে শিক্ষার্থী/শিক্ষার্থীর পিত/মাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি না থাকে, তবে উক্ত শিক্ষার্থীর বৈধ অভিভাবকের

জাতীয় পরিচয়পত্রে গটোকপি KYC ফামে সংযুক্ত করতে হবে। KYC ফমে শিক্ষারথী/শিক্ষার্থীর পিতা/মাতার নামের সথানে তার বৈ

অভিভাবকের নাম জাতীয় পরিচয়পত্র অনুষায়ী পূরণ করতে হবে। এক্ষে্রে বৈদ অভিভাবকের জাতীয় পরিচয়পতের তথ্য বিকাশ কর্তৃক

প্রদত্ত সংযুক্ত প্রত্যয়ন পত্রে পূরণ করে এই প্রত্যয়ন পরে অত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান/কলেজ কর্তৃপক্ষের প্রত্যায়ন নিতে হলে এ

তারপরে শিক্ষার্থীর KYC ফরমের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

  • বিকাশেল প্রতিনিধি একাউন্ট খােলার পরে পিন নম্বৰ সেট করে দিবে। শিক্ষার্থীদের অবশ্যই পিন নম্বর মনে বাখতে হবে। এ বিষয়ে

বিকাশ কর্তৃপক্ষ সতর্ক নির্দেশনা প্রদান করবেন।

শিক্ষার্থীর বিকাশ একাউন্ট খােলা শেষ হলে সাথে সাথে তার নামে খােলা বিকাশ একাউন্ট নমব আটালেস/ACTSS সামারি সিটে উক্ত

শিক্ষার্থীর নামের পাশে আপডেট করে নিতে হবে।

প্রতিদিনের একাউন্ট খােলার তথ্য বিকাশ প্রতিনিধি প্রতিষ্ঠান প্রধানের নিকট সরবলাজ করলে। কোন ভাবেই অসম্পূর্ণ একাউন্ট খেল

যাবে না। একাউন্ট খােলা সম্পন্ন হওয়ার পর তালিকার ফটোকপি প্রতিষ্ঠান প্রধানের নিকট জমা দিয়ে প্রতিষ্ঠান প্রধন দেকে একাউন্ট

খােলা সম্পন্ হয়েছে ম্মে বিকাশ কর্তৃপক্ষ প্রত্যান এহন করবেন।

 

আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel

Leave a Reply