ডিগ্রী পাস ও সার্টিফিকেট কোর্স ১ম বর্ষ পরীক্ষার নির্দেশনা

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের  ডিগ্রী পাস ও সার্টিফিকেট কোর্স ১ম বর্ষ পরীক্ষার নির্দেশনা প্রকাশ হয়েছে।  জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় তাদের ওয়েবসাইট এ ডিগ্রী পরীক্ষা গ্রহণের বিস্তারিত নির্দেশনা তুলে ধরে।

ডিগ্রী পাস ও সার্টিফিকেট কোর্স ১ম বর্ষ পরীক্ষা-২০১৮ পরীক্ষা গ্রহণ সম্পর্কে কেন্দ্রের অধ্যক্ষ/ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার প্রতি নির্দেশনা

১। সময়সূচি অনুযায়ী পরীক্ষা শুরুর ৩০মিঃ পূর্বে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের অধ্যক্ষ/ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অথবা তার প্রেরিত প্রতিনিধিকে (পরীক্ষা কমিটির সদস্য) প্রাধিকার পত্র ও পুলিশ ফোর্সসহ সংশ্লিষ্ট ট্রেজারী/থানা/ব্যাংক হতে প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করতে হবে। প্রশ্নপত্র সংগ্রহকালে সংশ্লিষ্ট টিমের সদস্যগণ মােবাইল ফোন বা অন্য কোন ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করতে পারবেন সময়সূচি অনুযায়ী সঠিক বিষয় ও পত্রের প্রশ্নপত্র আছে কিনা নিশ্চিত হয়ে প্রশ্নপত্রের প্যাকেট খুলতে হবে।

২। ২০১৮ সালের ডিগ্রী পাস ও সার্টিফিকেট কোর্স ১ম বর্ষের পরীক্ষার সময়কাল হবে ৩ ঘন্টা ৩০ মিনিট।

শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে EducationsinBD এর চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel নতুন বিকাশ অ্যাপ থেকে নিজের একাউন্ট খুলুন মিনিটেই, শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। কোথাও যেতে হবে না! আর অ্যাপ থেকে একাউন্ট খুলে প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস!সাথে আছে আরো অ্যাপ অফার: - প্রথম বার ২৫ টাকা রিচার্জে ৫০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস .সর্বমোট ১৫০ টাকা বোনাস পাবেন একজন বিকাশ গ্রাহক। এছাড়া যারা একাউন্ট খুলেছেন তারাও বিকাশ এপ ডাউনলোড করে প্রথম প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস! Bkash App Download Link

৩। পরীক্ষার কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী প্রয়ােজনীয় সংখ্যক ইনভিজিলেটর নিয়ােগ করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় হতে এই পরীক্ষার জন্য সরবরাহ করা মূল উত্তরপত্র ছাড়া অন্য কোন উত্তরপত্র ব্যবহার করা যাবে না। যেসমস্ত উত্তরপত্রে
TMIS সম্বলিত OMR ব্যবহৃত হয়েছে কেবল সেসমস্ত উত্তরপত্র এ পরীক্ষায় ব্যবহার করা যাবে।

৪। পরীক্ষা কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন ফরম প্রয়ােজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলােড করে ফটোকপি ব্যবহার করা যাবে।

৫। পরীক্ষার্থীদের আসন বিন্যাস বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী (প্রতি বেঞ্চে ২ জন) করতে হবে।

৬। উপস্থিতিপত্র পূরণ, প্রস্তুত ও প্রেরণ: বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক প্রকাশিত পরীক্ষার্থীদের বিবরণী অনুযায়ী সকল পরীক্ষার্থীর হাজিরাপত্র তৈরী করতে হবে এবং বিবরণীতে উল্লিখিত পরীক্ষার্থীর নাম, রােল নম্বর, রেজিঃ নম্বর, শিক্ষাবর্ষ, বিষয় ও পত্র কোড সঠিকভাবে লিখতে হবে। পরীক্ষার সময়সূচি অনুযায়ী বিষয় ও পত্র কোড মিলিয়ে OMR এর ক্রমিক নং যথাযথভাবে লিখেছে কি না তা যাচাই
করে রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ছবির সাথে পরীক্ষার্থীর চেহারার মিল আছে কি না তা যাচাই করে হাজিরাপত্রে পরীক্ষার্থীর স্বাক্ষর গ্রহণ করবেন। পরীক্ষার্থী OMR ফরমে তার রােল নম্বর, রেজিঃ নম্বর, উত্তরপত্রের ক্রমিক নম্বর এবং বিষয় কোড
যথাযথভাবে লিখেছে কিনা এবং সঠিকভাবে বৃত্ত ভরাট করেছে কি না তা যাচাই করে কক্ষ পরিদর্শক উত্তরপত্রে তাঁর জন্য নির্ধারিত স্থানে স্বাক্ষর করবেন। কোন অবস্থাতেই একজন পরীক্ষার্থীর জন্য একাধিক উপস্থিতিপত্র তৈরী করা যাবে না।
সকল পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর ০৭ (সাত) দিনের মধ্যে উপস্থিতিপত্র গ্রুপওয়ারী ও রােল নম্বরের ক্রমানুযায়ী সাজিয়ে বই আকারে বাইন্ডিং করে এক কপি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখায় জমা দিতে হবে এবং উপস্থিতিপত্রের ফটোকপি কেন্দ্রে সংরক্ষণ করতে হবে। বহিস্কৃত পরীক্ষার্থীর উপস্থিতিপত্রে লালকালিতে ‘বহিকৃত” শব্দ লিখতে হবে। অনুরূপভাবে অনুপস্থিত পরীক্ষার্থী যে বিষয় ও পত্রে অনুপস্থিত থাকবে সে বিষয় ও পত্রে লাল কালিতে অনুপস্থিত” লিখে কক্ষ পরিদর্শক স্বাক্ষর করবেন।

৭। উপস্থিতিপত্রে OMR এর ক্রমিক নম্বর ভুল লিখলে ঐ পরীক্ষা বাতিল হয়ে যাবে।

৮। OMR ফরম হেঁড়া, প্যাকেট প্রস্তুত ও প্রেরণ:

উত্তরপত্রের কভার পৃষ্ঠা অর্থাৎ OMR ফরমের প্রথম অংশসমূহ পরীক্ষা শেষে খুব সাবধানতার সাথে ও সঠিকভাবে বিচ্ছিন্ন করতে হবে। প্রতি বিষয় ও পত্রের উত্তরপত্রের কভার পৃষ্ঠার ছেড়া অংশ অনুর্ধ্ব ২০০ (দু’শত)টি করে রােল নম্বরের ক্রমানুযায়ী সাজিয়ে.করােগেটেড বক্স ব্যবহার করে প্যাকেট করতে হবে। তৈরীকৃত প্যাকেট পলিথিন শীট দিয়ে মুড়িয়ে সাদা মার্কিন কাপড় দিয়ে চুড়ান্ত প্যাকেট তৈরী করে গালাসীল করে পরিচালক, তথ্য প্রযুক্তি (আইসিটি) দপ্তর, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর-১৭০৪ এ ঠিকানায় ডাকযােগে এনসিওরড (Ensured) পার্সেলে প্রেরণ করতে হবে। রােল নম্বর, রেজিঃ নম্বর অথবা বিষয় কোড লিখতে ভুল হলে
তা একটানে কেটে সঠিকভাবে লিখতে হবে। বৃত্ত ভরাটে ভুল হলে তা ইরেজার দ্বারা ঘষা মাজা না করে, ব্লেড দ্বারা না মুছে বা সাদা ফুইড না লাগিয়ে সঠিকভাবে ভরাট করতে হবে। এরূপ ক্ষেত্রে একই সারিতে একাধিক বৃত্ত ভরাট থাকতে পারে। উল্লেখ্য ভুলকৃত OMR গুলাে আলাদাভাবে সাজানাে বা আলাদাভাবে প্যাকেট করার প্রয়ােজন নেই।

৯। উত্তরপত্রের বান্ডেল (Bundle) প্রস্তুত ও প্রেরণ:

ক। তত্ত্বীয় পরীক্ষার মূল উত্তরপত্র বিষয় ও পত্রওয়ারী পৃথক পৃথকভাবে অনধিক ৫০ (পঞ্চাশ)টি করে সাজিয়ে তা ২টি করােগেটেড.শীটের (একটি নিচে অপরটি উপরে) ভিতরে রাখতে হবে। অতঃপর প্রতিটি বান্ডেলের জন্য একটি করে বান্ডেল লেবেল প্রস্তুত করে বান্ডেলের উপরের করােগেটেড শীটে আঠা দিয়ে বান্ডেল লেবেল লাগিয়ে বান্ডেলটি শক্ত সুতলী দিয়ে বেঁধে উত্তরপত্রের বান্ডেল.তৈরী করতে হবে। তারপর বান্ডেলবান্ডেলসমূহ একত্রে পলিথিন শীট দিয়ে মুড়িয়ে সাদা মার্কিন কাপড় দিয়ে চূড়ান্ত প্যাকেট তৈরী করে গালাসীল করতে হবে। প্রতিটি প্যাকেটের বহিরাবরণে সুস্পষ্টভাবে অবশ্যই পরীক্ষা কোড-১১০১ (ডিগ্রী পাস) উল্লেখ করতে হবে। উত্তরপত্রের বান্ডেল লেবেলে বিষয় অনুযায়ী ঐ বিষয়ের উত্তরপত্র আছে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া জরুরী। বান্ডেলে বিষয়, বিষয় কোড এবং উত্তরপত্রের সংখ্যায় কোন গরমিল পাওয়া গেলে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খ। প্রতি বিষয় ও প্রতি পত্রের পরীক্ষা শেষ হওয়ার সাথে সাথে উত্তরপত্রের বান্ডেলের কাজ সম্পন্ন করে ঐদিনই উত্তরপত্রের প্যাকেট জনাব মু. সাইফুল ইসলাম নিশাত, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, ডিগ্রী পাস শাখা, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর-১৭০৪ ঠিকানায় ডাকযােগে এনসিওরড (Ensured) পার্সেলে পাঠাতে হবে। উত্তরপত্র ও OMR প্রেরণের
ডাক রশিদ অবশ্যই কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সংরক্ষণ করবেন। বাংলাদেশ রেলওয়ে, স্টিমার বা কুরিয়ার যােগে উত্তরপত্র প্রেরণ করা যাবে না। সাপ্তাহিক ছুটির দিন ও অফিস ছুটির পরে পােস্ট অফিস খােলা রাখার জন্য ডাক বিভাগের মহাপরিচালককে অনুরােধ জানানাে হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে স্থানীয় পােস্ট মাস্টারের সাথে যােগাযােগ করে পরীক্ষার উত্তরপত্র গ্রহণের জন্য অফিস সময়ের পর বা ছুটির দিনে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় পােস্ট অফিস খােলা রাখার ব্যবস্থা নিতে হবে। বাস্তব কোন কারণে উত্তরপত্র পরীক্ষা গ্রহণের দিন উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের নিকট পাঠানাে সম্ভব না হলে নিয়মানুযায়ী থানা/ট্রেজারীতে সংরক্ষণ করতে হবে। কোন অবস্থাতেই পরীক্ষার উত্তরপত্র কেন্দ্রে রাখা যাবে না।

গ। বহিস্কৃত উত্তরপত্র আলাদাভাবে করােগেটেড শীট ও সাদা কাপড় দিয়ে মুড়িয়ে গালাসীল করে জনাব সৈয়দ আহমেদ।খান, সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, ডিগ্রী পাস শাখা, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর-১৭০৪ এ ঠিকানায় প্রেরণ করতে হবে।
প্যাকেটের উপরে লাল কালি দিয়ে “বহিস্কৃত শব্দটি লিখতে হবে।

১০। টপশীট প্রস্তুত ও সংরক্ষণ ও প্রতিদিনের পরীক্ষায় উপস্থিত, অনুপস্থিত ও বহিষ্কৃত পরীক্ষার্থীদের বিবরণ উল্লেখ পূর্বক এক কপি টপশীট তৈরী করে তা কেন্দ্রে গালাসীল অবস্থায় (পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর এক বৎসর পর্যন্ত) সংরক্ষণ করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়
কর্তৃপক্ষ যে কোন সময় তা যাচাইয়ের জন্য তলব করতে পারবে। টপশীটের কপি উত্তরপত্রের বান্ডেলের ভিতর অথবা পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বা উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবরে প্রেরণের প্রয়ােজন নাই।

১১। পরীক্ষার কক্ষে কোন পরীক্ষার্থী যেন মােবাইল ফোন বা অন্য কোন ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস নিয়ে প্রবেশ করতে না পারে এ।বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। পরীক্ষা কক্ষে মােবাইল নিয়ে প্রবেশ করলে তার পরীক্ষা বাতিল হবে মর্মে সংশ্লিষ্টদের জানিয়ে দিয়ে তদনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে।

১২। স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট সকলের সহযােগিতা নিয়ে নকলমুক্ত ও সুন্দর পরিবেশে পরীক্ষানুষ্ঠানের প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা।গ্রহণ করতে হবে।

১৩। ২০১৮ সালের ডিগ্রী পাস ও সার্টিফিকেট কোর্স ১ম বর্ষ পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য।বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (www.nu.ac.bd / www.nubd.info) থেকে সংগ্রহ করে কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সংশ্লিষ্ট কলেজ কেন্দ্রের সকল পরীক্ষার্থী ও অভিভাবককে অবহিত করবেন। পত্র মারফত কোন তথ্য জানানাে হবে না। তাই পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে প্রতিদিন অন্তত ০৩ বার করে (সকাল, দুপুর ও বিকাল) ওয়েব-সাইট দেখার জন্য অনুরােধ করা হলাে।

১৪। ২০১৮ সালের ডিগ্রী পাস ও সার্টিফিকেট কোর্স ১ম বর্ষ পরীক্ষা সংক্রান্ত জরুরী তথ্য জেলা প্রশাসককে ফ্যাক্স বার্তা ও e-mail মারফত জানানাে হবে। সকল কলেজ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে প্রয়ােজনে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যােগাযােগ রাখার জন্য অনুরােধ করা হলাে।

১৫। পরীক্ষার প্রকাশিত সময়সূচি অনুযায়ী সকল তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত অর্থাৎ ২৩/০৫/২০১৯ তারিখের পূর্বে প্রশ্নপত্রের ট্রাংক ট্রেজারী/থানা/ব্যাংক হতে বের করা যাবে না। পরীক্ষা শেষ হওয়ার ০৭ (সাত) দিনের মধ্যে ট্রাংক ও
হাজিরাপত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের গাজীপুর ক্যাম্পাসে জমা দিতে হবে। উত্তরপত্র এবং অন্যান্য মালামালের যথাযথ হিসাব প্রদানে ব্যর্থ হলে কেন্দ্র বাতিলসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel