জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক ডিগ্রী (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি আবেদন/ প্রদান ২০২০

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক ডিগ্রী (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি আবেদন/ প্রদান ২০২০ । প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর অর্থে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান বিজ্ঞপ্তি ২০২০৷ National University Degree Pass Course Scholarship/ Stipend Application / NU Degree Stipend Distribution Notice Circular 2020.

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাত কলেজের ডিগ্রির উপবৃত্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট। প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর ওয়েবসাইট এ এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়। ২০২০ সালের স্নাতক পাস ডিগ্রী ও সমমানের পর্যায়ের দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান করতে হবে।ডিগ্রি উপবৃত্তি প্রাপ্তির জন্য শিক্ষার্থীকে অনলাইনে নিবন্ধন করতে হবে।

স্নাতক পাস ও সমমানের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা কবে দিবে ২০২০?

প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে স্নাতক (পাস) ও সমমানের দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান করা হবে। ডিগ্রী ৩য় বর্ষ ২০১৭-২০১৮, ২য় বর্ষ ২০১৬-২০১৭ এবং ১ম বর্ষ ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদানের অনলাইনে আবেদন শুরু হবে। উপবৃত্তি প্রাপ্তির জন্য শিক্ষার্থীকে অনলাইনে নিবন্ধন করতে হবে ।

Grameenphone এর MyGP এপ ডাউনলোড করে জিতে নিন ফ্রি ইন্টারনেট এবং ফ্রি পয়েন্ট MyGP App Download Now শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে EducationsinBD এর চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel নতুন বিকাশ অ্যাপ থেকে নিজের একাউন্ট খুলুন মিনিটেই, শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। কোথাও যেতে হবে না! আর অ্যাপ থেকে একাউন্ট খুলে প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস!সাথে আছে আরো অ্যাপ অফার: - প্রথম বার ২৫ টাকা রিচার্জে ৫০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস .সর্বমোট ১৫০ টাকা বোনাস পাবেন একজন বিকাশ গ্রাহক। এছাড়া যারা একাউন্ট খুলেছেন তারাও বিকাশ এপ ডাউনলোড করে প্রথম প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস! Bkash App Download Link

আরো পড়ুন- স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির বিস্তারিত তথ্য ২০২০

২০২০ সালের স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি আবেদন/  প্রদান

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট কর্তৃক ২০১৬-১৭,
২০১৭-১৮ এবং ২০১৮-১৯ (৩য় বর্ষ, ২য় বর্ষ এবং ১ম বর্ষ) শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত ২০২০ সালে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান করা হবে। উপবৃত্তি প্রাপ্তির জন্য শিক্ষার্থীকে http://estipend.pmeat.gov.bd লিংক-এ প্রবেশ করে অনলাইনে নিবন্ধন করতে হবে ।

নিবন্ধনের জন্য প্রয়ােজনীয় নির্দেশনা বর্ণিত ওয়েবসাইটে ব্যবহার নির্দেশিকায় পাওয়া যাবে । উক্ত সফটওয়্যারে তথ্য এন্ট্রির জন্য সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের আলাদাআলাদা User ID ও password শিমই প্রেরণ করা হবে। ব্যবহার নির্দেশিকার শর্তাবলি অনুসরণপূর্বক আগামী ১৬/০৮/২০২০ খ্রি: থেকে ১৫/০৯/২০২০ খ্রি: তারিখ পর্যন্ত সিস্টেম ব্যবহার করে অনলাইনে শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

সামগ্ৰীক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে আগামী ৩০/০৯/২০২০ তারিখের মধ্যে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের তালিকা সিস্টেম ব্যবহার করে অনলাইনে প্রেরণ করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের তালিকার কোন হার্ড কপি প্রেরণের প্রয়ােজনীয়তা নাই ।

উপবৃত্তির জন্য অনলাইনে নিবন্ধনের সময়সীমা

• অনলাইনে আবেদন শুরুঃ ১৫ আগষ্ট ২০২০

• অনলাইনে আবেদন এর শেষ তারিখঃ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

স্নাতক ডিগ্রী (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির আবেদন/ প্রদান নোটিশ ২০২০

স্নাতক ডিগ্রী (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির প্রদান নোটিশ ২০২০

উপবৃত্তির ফরম  ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

Online Stipend Application Link http://estipend.pmeat.gov.bd

স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান ২০২০

এর আগে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর অর্থে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়। প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর অর্থে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান ১৪ মে ২০২০ তারিখ  সকাল ১১:০০ ঘটিকায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় এর সম্মেলন কক্ষ (ভবন নং ৬, ১৮ তলাকক্ষ নং ১৮১৫), বাংলাদেশ সচিবালয়, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়।

ডিগ্রি উপবৃত্তি অনলাইনে আবেদন করার নিয়ম ২০২০ (Video Tutorial)

স্নাতক ডিগ্রী (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান ২০২০

২০২০ অর্থ বছরে যারা উপবৃত্তি পাবে:-

• স্নাতক পাস ১৬-১৭ সেশন: শেষ কিস্তি।
• স্নাতক পাস ১৭-১৮ সেশন: ২য় কিস্তি।
• স্নাতক পাস ১৮-১৯ সেশন: ১ম কিস্তি

উপবৃত্তি প্রদানের তারিখ:

যারা উপবৃত্তি পাবেঃ দারিদ্র ও মেধাবী ৭৫% মেয়ে & ২৫% ছেলে।

উপবৃত্তির পরিমাণঃ ৪৯০০/-

বিশেষ তথ্য ডিগ্রির উপবৃত্তি সংক্রান্ত
ইতিমধ্যে, যেসব শিক্ষার্থী ডিগ্রির উপবৃত্তির জন্য অনলাইনে আবেদনের করছেন,তারা এপ্লিকেশনের ডাউনলোড কপি অনলাইন থেকে প্রিন্ট করে বের করতে পারবেন। যারা এখনো আবেদন করেননি,অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদন করার পর প্রিন্ট কপি যেভাবে পাবেনঃ
নির্ধারিত website-এ ( http://estipend.pmeat.gov.bd ) যেয়ে শিক্ষার্থীর সাইন ইন অপশনে ডিগ্রির রেজিষ্ট্রেশন ও পাসওয়ার্ড দিয়ে প্রবেশ করতে হবে।
এরপর প্রদর্শিত তথ্য ছকের ডানদিনে প্রোফাইল অপশনে ক্লিক করতে হবে।
এরপর শিক্ষার্থীর আবেদনের তথ্য প্রদর্শিত হবে। ডানদিকে “ এপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন” অপশন থেকে পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।
উক্ত পিডিএফ ফাইলটি যেকোনো কম্পিউটার দোকান থেকে প্রিন্ট করে বের করে নিতে পারবেন।

বিশেষ তথ্য ডিগ্রির উপবৃত্তি সংক্রান্ত
চিত্র ১
বিশেষ তথ্য ডিগ্রির উপবৃত্তি সংক্রান্ত
চিত্র ২
চিত্র ৩
বিশেষ তথ্য স্নাতক পাস ডিগ্রির উপবৃত্তি সংক্রান্ত
চিত্র ৪

উল্লেখ্য,অনলাইনে আবেদন করে প্রিন্ট কপি বের করার পর,উক্ত প্রিন্ট কপিসহ কলেজ নির্দেশিত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, কলেজ নোটিশের নির্দিষ্ট তারিখের মধ্যে কলেজে জমা দিতে হবে।ইতিমধ্যে বেশ কিছু কলেজের নোটিশ দেওয়া হয়েছে। যেসব কলেজে নোটিশ দেওয়া হয়নি, অপেক্ষা করুন এবং কলেজের সাথে যোগাযোগ রাখুন।

আবেদন করার ওয়েবসাইট লিংকঃ http://estipend.pmeat.gov.bd

এক নজরে অনলাইনে আবেদন করতে যা যা লাগবেঃ
১. শিক্ষার্থী এইচএসসি রেজিষ্ট্রেশন ও রোল নাম্বার;
২. ডিগ্রির রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার;
৩. শিক্ষার্থীর জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর ও জন্ম নিবন্ধন নিবন্ধনের নম্বর;
৪. অভিভাবকের জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর;
৫. পাসপোর্ট সাইজের এক কপি ছবি;
৬. শিক্ষার্থীর ব্যাংকের নাম ও একাউন্ট নম্বার।
(উল্লেখ্য,ব্যাংক একাউন্টের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থী যেকোনো ব্যাংক একাউন্ট নম্বর ব্যবহার করতে পারবেন! কোনো শিক্ষার্থীর ব্যাংক একাউন্ট না থাকলে মোবাইল ব্যাংকিং সিলেক্ট করে (শুধুমাত্র বিকাশ,রকেট) একাউন্ট নম্বর দিয়ে আবেদন করতে পারবেন)

কলেজে আবেদন জমাদানের সময় যা যা লাগতে পারেঃ
১. ডিগ্রির রেজিষ্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি;
২. সর্বশেষ পরীক্ষার মার্কসিটের কপি;
৩. এক কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি;
৪. শিক্ষার্থীর জন্ম নিবন্ধন ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি;
৫. অনলাইনে আবেদন করা প্রিন্ট কপি।

শর্তাবলীঃ
১. উপবৃত্তি প্রাপ্তির জন্য নির্বাচিত শিক্ষার্থীর অভিভাবকের বার্ষিক আয় মোট ১,০০,০০০/- (এক লক্ষ) টাকার কম হতে হবে।
২. অভিভাবক/পিতামাতার মোট জমির পরিমাণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বসবাসকারী ০.০৫ শতাংশ, পৌরসভা এলাকায় ০.২০ শতাংশ এবং অন্যান্য এলাকায় ০.৭৫ শতাংশের কম থাকতে হবে।

জেনে রাখুনঃ
যাদের নিবন্ধন করার সময় “Error! Not Eligible! Annual Income more than 100000” লিখাটি আসবে,তারা উপবৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন না! কারণ ডিগ্রির ভর্তির সময় অভিভাবকের বার্ষিক আয় ১ লক্ষ টাকার বেশি দিয়েছিলেন তাই!

👉 শুধুমাত্র ডিগ্রি ১ম বর্ষ(২০১৮-১৯),(২য় বর্ষ ২০১৭-১৮) এবং (৩য় বর্ষ ২০১৬-১৭) শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবেন! অর্নাসের কোনো শিক্ষার্থী উপবৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন নাহ।
👉 ১,২,৩ বা ৪ সাবজেক্ট F প্রাপ্ত শিক্ষার্থীও আবেদন করতে পারবেন।
👉 Not promoted প্রাপ্ত কোনো শিক্ষার্থী আবেদন করতে পারবে নাহ।
👉 ইতিপূর্বে উক্ত সেশনের ডিগ্রি (পাস) পর্যায়ে উপবৃত্তির অর্থ পেয়েছে তাদেরকেও পুনরায় অনলাইনে আবেদন করতে হবে।

যারা উপবৃত্তি পাবেন তারা সব সময় কলেজে যোগাযোগ রাখবেন। (যারা উপবৃত্তির জন্য মনোনিত হয়েছেন) উপবৃত্তির টাকা নিজ হাতে ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ৬ জন ছাত্র-ছাত্রীদের মোবাইলে টাকা প্রেরণের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়।

২০১৯-২০ সেশনের উপবৃত্তির জন্য প্রাথমিক আবেদন এর সময়সীমা বিতরণ এর পর নির্ধারণ করা হবে।

  • ২০১৩-১৪ অর্থবছরের উপবৃত্তি দেওয়া হয়েছিল ২০১৫ সালের মে মাসে।
  • ২০১৪-১৫ অর্থবছরের উপবৃত্তি দেওয়া হয়েছিল ২০১৬ সালের জুনের ২৩ তারিখ।
  • ২০১৫-১৬ অর্থবছরের উপবৃত্তি দেওয়া হয়েছিল ২০১৭ সালের জুলাই মাসে।
  • ২০১৬-১৭ অর্থবছরের উপবৃত্তি দেওয়া হয়েছিল ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে।
  • ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের উপবৃত্তি দেওয়া হয়েছিল ২০২০ সালের মে মাসে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক পাশ ডিগ্রীর উপবৃত্তির উপবৃত্তি সংক্রান্ত নোটিশ ২০২০/ তথ্য

১৬-১৭ সেশনের উপবৃত্তির জন্য প্রাথমিক আবেদন এর সময়সীমা বিতরণ এর পর নির্ধারণ করা হবে।

২০১৮-১৯ অর্থবছরের উপবৃত্তি কবে দিবে জানতে আমাদের ওয়েবসাইট এ চোখ রাখুন।

বাংলাদেশ সরকার এবং প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর অর্থায়নে সারা দেশে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান প্রকল্পটি পরিচালিত হয়ে আসছে। স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। Prime minister Education Trust Scholarship Notice/ Circular for National University Degree Pass Course Students

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উপবৃত্তি বিতরণ কার্যক্রম:

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর উপবৃত্তি কার্যক্রম শুভ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর উপদেষ্টা পরিষদের সভাপতি এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট থেকে ২০১২-২০১৩ অর্থবছরে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের ১,২৯,৮১০ (এক লক্ষ উনত্রিশ হাজার আটশত দশ) জন ছাত্রীর মাঝে মোট ৭২.৯৫ (বাহাত্তর কোটি পঁচানব্বই লক্ষ) কোটি টাকা উপবৃত্তি বাবদ প্রদান করা হয়। ৩০ জুন, ২০১৩ খ্রি. তারিখে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের ১৫ (পনের) জন ছাত্রীকে সরাসরি উপবৃত্তি বিতরণের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর উপবৃত্তি কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন। upobritti 2020

আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel