BOU SSC 1st Year Humanities 1st Assignment Answer 2021 উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এসএসসি এসাইনমেন্ট

BOU SSC 1st Year Humanities 1st Assignment Answer 2021 উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এসএসসি এসাইনমেন্ট 2021, বাউবি ১ম বর্ষের মানবিক শাখার 4th এসাইনমেন্ট।।
Bangladesh Open University Assignment

নদী কাকে বলে? নদীর প্রবাহপথে ক্ষয়কার্যের ফলে বিভিন্ন ভূমিরূপ সৃষ্টি হয়। এরূপ ক্ষয়জাত প্রধান ভূমিরূপ বর্ণনা করুন? এসাইনমেন্ট উত্তর/সমাধান।

৪র্থ এসাইনমন্ট ২০২১
ক্রমিক সংখ্যা- 04
বিষয় কোডঃ 1660
বিভাগ: মানবিক
এসাইনমেন্টের শিরোনাম: ভূ-অভ্যন্তরের মন্ডল বা স্তরসমূহ চিত্রসহ বর্ণনা করুন।

নদীর ক্ষয়কার্য প্রধানতঃ চারটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে হয়ে থাকে। যেমন- (১) পানি প্রবাহ ক্ষয়, (২) অবঘর্ষ, (৩) ঘর্ষণ জনিত ক্ষয় ও দ্রবণ। নদীর এসকল ক্ষয় ক্রিয়া তিন উপায়ে সম্পাদিত হয়। যথা- (ক) পশ্চাৎমুখী ক্ষয় সাধন, খাড়াভাবে ক্ষয় সাধন এবং (গ) পার্খক্ষয়।

বিকাশ এপ ডাউনলোড করে প্রথম প্রথম লগ ইনে পাবেন ১৫০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস, সাথে ৫০ টাকা বোনাস একদম ফ্রী - Bkash App Download Link শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে EducationsinBD এর ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel

ক) পানি প্রবাহ ক্ষয় (Hydraulic Action): প্রবহমান নদীর পানি নদীখাত ও নদীপার্শ্ব প্রচণ্ড বেগে আঘাত করলে অপেক্ষাকৃত কোমল ও অসংলগ্ন প্রস্তর খগুগুলো ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে ভেঙ্গে যায় এবং নদীর স্রোতের সঙ্গে বহু দূরে নীত হয়। একে পানি প্রবাহ ক্ষয় বলে।

খ) অবঘর্ষ (Corrasion): নদী খাতের সঙ্গে নদীবাহিত প্রস্তর খণ্ডের সংঘর্ষের ফলেও নদী ক্ষয়সাধন করে। নদী বাহিত পরস্তর খগু গুলো নদীর স্রোতে ঘুরতে ঘুরতে চলে এবং নদীখাতের সাথে সংঘর্ষের ফলে নদীখাতে ছোট ছোট গর্ত বা বর্তুলাকার গর্তের (Pot Holes) সৃষ্টি করে। এইরূপ গর্তের সৃষ্টির ফলে নদীখাত আরও দ্রুত ক্ষয়প্রাপ্ত হয়। এই প্রক্রিয়াকে অবঘর্ষ বলা হয়।

গ) ঘর্ষণ ক্ষয় (Attrition): নদীবাহিত প্রস্তরখণ্ড (Boulders) একটি অপরটির সঙ্গে ঘর্ষণের ফলে ভেঙ্গে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রস্তর খণ্ডে এবং অবশেষে বালুকণায় পরিণত হয় । ফলে নদী অতি সহজেই এগুলো বহন করতে পারে।

ঘ) দ্রবণ ক্ষয় (Solution or Corrosion): নদীর পানিতে অনেক সময় প্রস্তরখন্ড দ্রবীভূত হয়ে ক্ষয়্রাপ্ত হয়। চুনাপাথর অঞ্চলে এ প্রকার ক্ষয়কার্ধ বিশেষভাবে লক্ষ্য করা যায়। একে দ্রবণ বলা হয়।

উপরোক্ত প্রক্রিয়া একত্রে একটি নদীর ক্ষয়কাজ সম্পন্ন করে। নদীর এ সমস্ত ক্ষয় প্রক্রিয়া তিন উপায়ে সম্পাদিত হয়।যথা-

ক) পশ্চাৎমুখী ক্ষয়সাধন (Headward Erosion)

খ) খাড়াভাবে ক্ষয়সাধন (Down Cutting Erosion) এবং

গ) পার্শ্বক্ষয় (Lateral Erosion)

পশ্চাৎমুখী ক্ষয়সাধনের মাধ্যমে নদী তার দৈর্ঘ্য বৃদ্ধি করে। ভূ-গর্ভস্থ বা অন্তঃপ্রবাহের কারণে পাহাড়ের গায়ে যে ঝর্ণার সৃষ্টি হয় তা নদীর একটি অংশ। ঝর্ণার উৎস অঞ্চল ক্রমাগত ক্ষয় সাধনের কারণে দৈর্ঘ্য ওপরের দিকে বাড়তে থাকে। নদী খাড়া ক্ষয় সাধনের মাধ্যমে তলদেশের গভীরতা বৃদ্ধি করে। তাছাড়া নদীর পার্শক্ষয়ও নদীর প্রশস্ততা বৃদ্ধির জন্য অত্যন্ত গুরুতৃপূর্ণ। এ পদ্ধতিতে নদী তার এক পাড়ে ক্ষয়সাধন করে এবং বিপরীত পাড়ে এ ক্ষয়িত শিলা/মাটি সঞ্চয় করে থাকে ।

অনেক সময় কিছু কিছু ভূমিরূপ নদীর উধ্বগতিতেও দেখা যায় আবার মধ্যবর্তী গতিতে দেখা যায়। যেমন- র‌্যাপিডস, জলপ্রপাত, নদীবাঁক ও ব্লাফস। তাছাড়া প্লাবন ভূমি, খোদিত নদী বাঁক, নদীমঞ্চ প্রভৃতি ভূ-প্রাকৃতিক রূপ নদীর মধ্য ও নিন্নাঞ্চলে দেখা যায়।

শিক্ষা নিউজ EducationsinBD সংক্রান্ত সকল তথ্য পেতে আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel