জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রীর রেগুলেশন প্রমোশনের নিয়মাবলি

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ১৯৯২-এর ৪৬ নং ধারা মােতাবেক প্রণীত স্নাতক (পাস) ডিগ্রির রেগুলেশন্স গ্রেডিং ও ক্রেডিট পদ্ধতি অনুযায়ী।
(২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষ থেকে কার্যকর)। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রী পাস কোর্সের রেগুলেশন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ডিগ্রির রেগুলেশন ও প্রমোশনের নিয়মাবলি। Bachelor Degree (Pass) Regulations 2013-2014

শিক্ষাকার্যক্রমের মেয়াদ

• জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে স্নাতক (পাস) শিক্ষাকার্যক্রমের মেয়াদ ৩ বছর ।।
• প্রতিটি শিক্ষাকার্যক্রম ৩টি একাডেমিক বর্ষে বিভক্ত করে পাঠদান সম্পন্ন করা হবে, যেমন: ১ম বর্ষ,২য় বর্ষ ও ৩য় বর্ষ ।
• সংশিষ্ট শিক্ষাকার্যক্রমের সিলেবাস অনুযায়ী প্রতি শিক্ষাবর্ষে ক্লাস শুরর পর থেকে মােট ৩০ সপ্তাহ পাঠদান, ৪ সপ্তাহ পরীক্ষার প্রস্তুতি, ৬ সপ্তাহ বার্ষিক পরীক্ষাকার্যক্রম চলবে। অবশিষ্ট সময়ের মধ্যে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে। প্রতি বর্ষের পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর পরবর্তী বর্ষের ক্লাস শুরু হবে এবং এ জন্য ছাত্র-ছাত্রীদেরকে কলেজে নতুন বর্ষের জন্য প্রবেশনাল ছাত্র হিসেবে তালিকাভুক্ত হতে হবে।
• বার্ষিক কোর্স ভিত্তিক পরীক্ষা এবং গ্রেডিং ও ক্রেডিট পদ্ধতিতে এই শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালিত হবে। গ্রেডিং ও ক্রেডিটপদ্ধতিতে জিপিএ (GPA) ও সিজিপিএ (CGPA) হিসেবে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

স্নাতক (পাস) শিক্ষাকার্যক্রম
• বি এ (পাস) শিক্ষাকার্যক্রম
• বি এস এস (পাস) শিক্ষাকার্যক্রম
• বি বি এস (পাস) শিক্ষাকার্যক্রম
• বি এসসি (পাস) শিক্ষাকার্যক্রম

Grameenphone এর MyGP এপ ডাউনলোড করে জিতে নিন ফ্রি ইন্টারনেট এবং ফ্রি পয়েন্ট MyGP App Download Now শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে EducationsinBD এর চ্যানেলের সাথেই থাকুন। আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel নতুন বিকাশ অ্যাপ থেকে নিজের একাউন্ট খুলুন মিনিটেই, শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে। কোথাও যেতে হবে না! আর অ্যাপ থেকে একাউন্ট খুলে প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস!সাথে আছে আরো অ্যাপ অফার: - প্রথম বার ২৫ টাকা রিচার্জে ৫০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস .সর্বমোট ১৫০ টাকা বোনাস পাবেন একজন বিকাশ গ্রাহক। এছাড়া যারা একাউন্ট খুলেছেন তারাও বিকাশ এপ ডাউনলোড করে প্রথম প্রথম লগ ইনে পাবেন ১০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট বোনাস! Bkash App Download Link

স্নাতক (পাস) শিক্ষাকার্যক্রমে আবশ্যিক বিষয়সমূহ
• স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস
• ইংরেজী (আবশ্যিক)
• বাংলা জাতীয় ভাষা

আরো দেখুন

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স প্রোগ্রামের রেগুলেশন

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের রেগুলেশন

স্নাতক পাশ শিক্ষাকার্যক্রমের বিষয় ও বিষয় গুচ্ছসমূহ

ভর্তির যােগ্যতা
বাংলাদেশের কোন শিক্ষা বাের্ডের উচ্চ মাধ্যমিক/আলিম বা দেশ বিদেশের সমমানের পরীক্ষায় পাশ করা শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কমিটি কর্তৃক নির্ধারিত নিয়ম-কানুন ও শর্ত অনুযায়ী স্নাতক (পাস) শিক্ষাকার্যক্রমে ছাত্র/ছাত্রী হিসেবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজে ভর্তি হতে পারবে।

রেজিষ্ট্রেশন
• পূর্ণকালীন ছাত্র/ছাত্রী হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মানুযায়ী একজন শিক্ষার্থী কেবলমাত্র একটি শিক্ষাকার্যক্রমে ভর্তি হতে পারবে।
• একজন শিক্ষার্থীকে সর্বোচ্চ ৬ (ছয়) শিক্ষাবর্ষের মধ্যে স্নাতক (পাস) শিক্ষাকার্যক্রম সম্পন্ন করে ডিগ্রী অর্জন করতে হবে।
• ১ম বর্ষের সকল বিষয় উত্তীর্ণ না হলে ৩য় বর্ষের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

পাঠদান ও পরীক্ষার মাধ্যম

পাঠদানের মাধ্যম হবে বাংলা অথবা ইংরেজী। পরীক্ষার উত্তরপত্রে বাংলা অথবা ইংরেজী ভাষার যে কোন একটি মাধ্যমে লিখতে হবে। উদ্ধৃতি ও টেকনিক্যাল শব্দ ব্যতিত একই প্রশ্নের বা একই বিষয়ের উত্তরপত্রে বাংলা ইংরেজীর মিশ্রণ গ্রহণযােগ্য নয়। তবে ভাষা সাহিত্যের বিষয় সমূহের ক্ষেত্রে পাঠদান ও পরীক্ষার মাধ্যম সংশি- ষ্ট ভাষায় হবে।

পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যােগ্যতা

• ব্যাচেলর (পাস) পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যােগ্যতা হিসাবে মােট ক্লাসের (তত্ত্বীয়/ব্যবহারিক) ৭৫% উপস্থিতি থাকতে হবে। বিশেষ ক্ষেত্রে অধ্যক্ষ বিভাগীয় প্রধানের সুপারিশের ভিত্তিতে উপস্থিতি ৭৫%-এর কম এবং ৬০% বা তার বেশি থাকলে তা বিবেচনার জন্য সুপারিশ করতে পারবেন। ৭৫% এর কম উপস্থিতির জন্য পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় ৫০০ (পাঁচশত) টাকা নন- কলেজিয়েট ফি অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুকুলে জমা দিতে হবে।

স্নাতক পাশ ডিগ্রীর গ্রেডিং সিস্টেম

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স প্রোগ্রামের রেগুলেশন

আরো দেখুন- জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রেডিং সিস্টেম

৩ বছর মেয়াদি ব্যাচেলর ডিগ্রী কোর্স এর প্রােমশন, গ্রেড উন্নয়ন ও মান উন্নয়ন

• এক বর্ষ থেকে পরতী বর্ষে Promotion এর জন্য সকল কোর্সের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক।
• ১ম বর্ষ থেকে ২য় বর্ষে Promotion এর জন্য কমপক্ষে ৩টি তত্ত্বীয় কোর্সে D বা তার চেয়ে বেশী গ্রেড পেতে হতে।
• ২য় বর্ষ থেকে ৩য় বর্ষে Promotion এর জন্য কমপক্ষে ৩টি তত্ত্বীয় কোর্সে D বা তার চেয়ে বেশী গ্রেড পেতে হতে।
• কোন বর্ষে ১টি কোর্সে অনুপস্থিত থেকে বাকি সকল কোর্সে D বা তার চেয়ে বেশী গ্রেড পেলে শর্তসাপেক্ষে পরবর্তী বর্ষে Promotion পাবে। তবে অনুপস্থিত কোর্সে পরবর্তী বছর পরীক্ষায় অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক।
• সর্ত ক-ঘ পূরণে ব্যর্থ শিক্ষার্থী Not Promoted হবে এবং তার পরবর্তী বর্ষের ভর্তি বাতিল বলে গণ্য হবে। পরবর্তী বছর শিক্ষার্থী পূর্ববর্তী বছরের শুধুমাত্র F এবং অনুপস্থিত কোর্সের গ্রেড উন্নয়ন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। একই সাথে C এবং উ গ্রেড প্রাপ্ত সর্বোচ্চ ২টি কোর্সে মান উন্নয়ন পরীক্ষার জন্য অংশগ্রহণ করতে পারবে।
• ১ম বর্ষের সকল কোর্সে D বা এর বেশী না পাওয়া পর্যণ্ড ৩য় বর্ষের চূড়াড় পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।
• Promoted এবং Not Promoted সকল পরীক্ষার্থী C এবং D গ্রেড পাওয়া প্রতি বর্ষের সর্বোচ্চ ২টি কোর্সে শুধুমাত্র পরবর্তী বছর মান
উন্নয়ন পরীক্ষা দিতে পারবে। F গ্রেড প্রাপ্ত কোর্সে একাধীক বার পরীক্ষা দেওয়ার সুযােগ পাবে। একই সাথে গ্রেড উন্নয়ন এবং মান উন্নয়ন পরীক্ষা দেওয়া যাবে। তবে F গ্রেড প্রাপ্ত কোর্সকে গ্রহণযােগ্য গ্রেডে উন্নীত হলে ঐ কোর্সে মান উন্নয়ন পরীক্ষার সুযােগ নাই। এছাড়া F গ্রেড পাওয়া কোর্সে পরবর্তীতে গ্রেড উন্নয়ন হলে প্রাপ্ত গ্রেড যাই হােক না কেন B’ (Plus) এর বেশী প্রাপ্য হবে না।
• চূড়াড় ফলাফল প্রকাশের পর CGPA ২.২৫ বা এর কম হলে শিক্ষার্থী রেজিস্ট্রেশন মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে পরবর্তী বছর পূর্বে মান উন্নয়ন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে নাই ৩য় বর্ষের এমন সর্বোচ্চ ২টি কোর্সে মান উন্নয়ন (C এবং D গ্রেড প্রাপ্ত) পরীক্ষা দিতে পারবে। সবঙ্গুরে মান উন্নয়ন পরীক্ষার ফলাফলের ক্ষেত্রে Pick up পদ্ধতি অনুসরণ করা হবে। অর্থাৎ ১ম এবং ২য বার পরীক্ষার ফলাফলের মধ্যে যেটি উচ্চতর গ্রেড সে গ্রেড CGPA গণনার ক্ষেত্রে প্রযােজ্য হবে।

 

শিক্ষাকার্যক্রমে পত্রভিত্তিক নম্বরবন্টন

২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষ থেকে স্নাতক (পাশ) শ্রেণীর সকল শিক্ষাকার্যক্রমের ১ম, ২য় ও ৩য় বর্ষের প্রত্যেক তত্ত্বীয় পত্রের প্রতি ১০০ নম্বরের মধ্যে ইন-কোর্স ও ক্লাসে উপস্থিতির ক্ষেত্রে নম্বর হবে ২০% (১৫%+৫%) এবং তত্ত্বীয় ফাইনাল পরীক্ষার ক্ষেত্রে নম্বর হবে। ৮০% প্রত্যেক বর্ষের ক্লাস শুর- থেকে ১৫ সপ্তাহের মধ্যে প্রতিটি পত্রের অর্ধেক পাঠ্যসূচী শেষ করে পঠিত অংশের উপর উক্ত পত্রের পাঠদানকারী শিক্ষককে একটি ইন-কোর্স পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে। একইভাবে পরবর্তী ১৫ সপ্তাহের মধ্যে পাঠ্যসূচীর বাকী অর্ধেক শেষ করে এ অংশের উপর আর একটিসহ মােট ২টি ইন-কোর্স পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে। অভ্যরীণভাবে উত্তরপত্র মূল্যায়ন করে ইন-কোর্স ও ক্লাস উপস্থিতিতে প্রত্যেক তত্ত্বীয় পত্রে প্রাপ্ত মােট নম্বরপত্রের এক কপি সংশি-ষ্ট বিষয়ের পত্র কোড নম্বর ও শিক্ষার্থীদের রােল নম্বরের বিপরীতে অন-লাইনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রেরণ করতে হবে। এক কপি নম্বরপত্র জাতীয়
বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশি-ষ্ট উপ- পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এর নিকট ডাকযােগে/হাতে হাতে প্রেরণ করতে হবে এবং এক কপি সংশিষ্ট বিভাগীয় প্রধানের অফিসে সংরক্ষণ করতে হবে।

 

স্নাতক পাশ ডিগ্রির সিজিপিএ নির্ণয় করার পদ্ধতি

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স প্রোগ্রামের রেগুলেশন

ডিগ্রি প্রাপ্তির যােগ্যতাসমূহ ব্যাচেলর (পাস) ডিগ্রি পেতে হলে একজন শিক্ষার্থীকে নিমােক্ত শর্তসমূহ পূরণ করতে হবে।

• একজন শিক্ষার্থীকে সকল তত্ত্বীয়/ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে অব্যশই ন্যূনতম CGPA ২.০০ পেতে হবে। অন্যথায় সে উক্ত প্রােগ্রামে অকৃতকার্য বলে গণ্য হবে।
• প্রতিটি ব্যবহারিক পরীক্ষায় পৃথকভাবে গ্রেড পয়েন্ট ২.০০ অর্জন করতে হবে। কোন পরীক্ষায় প্রয়ােজনীয় GP অর্জনে ব্যর্থ হলে রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ থাকা সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যাচের সাথে ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশ গ্রহণের সুযােগ পাবে।
• CGPA ৩.৭৫ থেকে ৪.০ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের Distinction সহ পাস ডিগ্রি প্রদান করা হবে যা একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্টে উলে-খ থাকবে।
• সকল প্রােগ্রামের তত্ত্বীয় ও ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ বাধ্যতামূলক এবং নূন্যতম গ্রেড পয়েন্ট ২.০০ বা D গ্রেড পেয়ে পাশ করতে হবে। কোন একটি কোর্সে F থাকলে CGPA যাই হােক না কেন শিক্ষার্থী অকৃতকার্য বলে বিবেচিত হবে এবং সার্টিফিকেট প্রাপ্য হবে না। তবে শিক্ষার্থী ইচ্ছে করলে অকৃতকার্য হিসেবে ট্রান্সক্রিপ্ট গ্রহণ করতে পারবে।

পাস ডিগ্রি
• CGPA এর ভিত্তিতে চূড়াড় ফলাফল প্রকাশ করা হবে।
• ১ম, ২য় বা ৩য় বর্ষে F গ্রেড পাওয়া পত্রগুলাে রেজিস্ট্রেশন মেয়াদে (শুর থেকে পাঁচ শিক্ষাবর্ষের মধ্যে) অবশ্যই D বা উচ্চতর গ্রেডে উন্নীত করতে হবে। তবে F গ্রেড প্রাপ্ত পত্র পরবর্তীতে পরীক্ষার মাধ্যমে উন্নীত করার ক্ষেত্রে ফলাফল যাই হােক না কেন একজন পরীক্ষার্থী সর্বোচ্চ B+ গ্রেড এর বেশী প্রাপ্য হবে না।

ট্রান্সক্রিপ্টস
বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত ফি পরিশােধ সাপেক্ষে প্রত্যেক বর্ষের ফলাফলের ট্রান্সক্রিপ্ট প্রদান করা হবে। একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্টে গ্রেড, Corresponding গ্রেড পয়েন্ট GPA, CGPA উলে-খ থাকবে এবং এতে কোন গাণিতিক নম্বর থাকবে না।

 

প্রাইভেট পরীক্ষার্থী হিসেবে রেজিস্ট্রেশনের শর্তাবলী

বিএ/বিএসএস/বিবিএস (পাস) পরীক্ষায় প্রাইভেট পরীক্ষার্থী হিসেবে অংশ গ্রহণ করা যাবে। তবে প্রাইভেট পরীক্ষার্থীগণ যে সব বিষয়ের পাঠ্যসূচীতে ব্যবহারিক বা মাঠকর্ম অদ্ভুক্ত আছে সে সব বিষয় গ্রহণ করতে পারবে না। বিএসসি (পাস) শিক্ষাকার্যক্রমে ব্যবহারিক বিষয় থাকায় উক্ত শিক্ষাকার্যক্রমে প্রাইভেট পরীক্ষার্থী হিসেবে রেজিস্ট্রেশনের সুযােগ নেই। প্রাইভেট পরীক্ষার্থীদের শিক্ষাকার্যক্রমের মেয়াদ হবে ০৩ (তিন) বছর। প্রাইভেট পরীক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ হবে ০৬ (ছয়) বছর। নিয়মিত পরীক্ষাথীদের ন্যায় প্রতি শিক্ষাবর্ষ শেষে বিষয় ও বর্ষওয়ারী একই প্রশ্নে নিয়মিত ও প্রাইভেট পরীক্ষার্থীদের চুড়াড় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এইচএসসি/সমমান পরীক্ষা পাশের ০৩(তিন) বছর পর প্রয়ােজনীয় শর্তাবলী পূরণ সাপেক্ষে প্রাইভেট পরীক্ষার্থী হিসেবে রেজিস্ট্রেশন করে পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে হবে। নিয়মিত শিক্ষার্থীদের ন্যায় প্রাইভেট পরীক্ষার্থীদের জন্যও রেগুলেশনের অন্যান্য শর্তাবলী প্রযােজ্য হবে। প্রাইভেট পরীক্ষার্থীরা প্রতি বর্ষে সংশি-ষ্ট কলেজের অধীনে সকল কোর্সের ২০% ইন-কোর্স পরীক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক নির্ধারিত নিয়মে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে।

ভর্তির অযােগ্যতা
কোন পরীক্ষার্থী বিএ/বিএসএস/বিবিএস/বিএসসি (পাস) পরীক্ষায় যে কোন একটি শিক্ষাকার্যক্রমে পাশ করার পর নিয়মিত, অনিয়মিত বা প্রাইভেট পরীক্ষার্থী হিসেবে অন্য কোন ডিসিপি- নে স্নাতক(পাস) বা অনার্স শিক্ষাকার্যক্রমে ভর্তি হতে বা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না।

দ্বৈত রেজিস্ট্রেশন
কোন ছাত্র/ছাত্রী এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভূক্ত কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোন শিক্ষাকার্যক্রমে অধ্যয়নরত অবস্থায় (শিক্ষাকার্যক্রম চলাকালীন সময়) অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে/অন্য কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোন শিক্ষাকার্যক্রমেই অধ্যয়ন করতে পারবে। এরূপ ভর্তিকৃত এবং পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ছাত্র/ছাত্রীর উভয় শিক্ষাকার্যক্রমের রেজিস্ট্রেশন ও পরীক্ষার ফলাফল বাতিল করা যাবে।

 

সার্টিফিকেট শিক্ষাকার্যক্রম পরীক্ষায় রেজিস্ট্রেশনের শর্তাবলী

নির্দিষ্ট বিষয়গুচ্ছসহ স্নাতক (পাস) প্রােগ্রামে বিএ (পাস), বিএসএস (পাস), বিবিএস (পাস) ডিগ্রীপ্রাপ্ত কোন শিক্ষার্থী নির্ধারিত বিষয় গুচ্ছে উলে- খিত ঐচ্ছিক বিষয় হিসেবে কোন একটি বিষয়ে অধ্যয়ন করেনি কিন্তু মাস্টার্স প্রথম বর্ষে সে বিষয়ে ভর্তি হতে ইচ্ছুক সেক্ষেত্রে তাকে উক্ত বিষয়ে সার্টিফিকেট কোর্স রেজিস্ট্রেশন ও ডিগ্রী প্রাপ্ত হতে হবে। উক্ত সার্টিফিকেট শিক্ষাকার্যক্রম ০১ বছর মেয়াদি ও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ২৪ ক্রেডিটে। রেজিষ্ট্রেশনের মেয়াদ ৩ বছর।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রী পাস কোর্সের রেগুলেশন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ডিগ্রির রেগুলেশন ও প্রমোশনের নিয়মাবলি।

আমদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন YouTube Channel